যে সকল খাবার খেলে কিডনি ভালো থাকবে

কিডনি ভালো রাখার জন্য আপনাকে যথেষ্ট সচেতনতা হতে হবে। কারণ আমাদের সঙ্গে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ হলো কিডনি। আমাদের এই কিডনিতে কোন সমস্যা দেখা দিলেন ধীরে ধীরে অন্যান্য অঙ্গের সমস্যা হয়ে তারা। ডায়াবেটিস, ঘন ঘন প্রস্রাব ইনফেকশন, রক্তচাপ, এবং অস্বাস্থ্যকর খাবার গ্রহণের কারণে কিডনি রোগ হয়ে থাকে। আপনার কিডনি রোগের চিকিৎসার প্রথম এবং সঠিক উপায় হল সঠিক খাবার নির্বাচন। অন্যান্য রোগের তুলনায় এই কিডনি রোগে নির্ধারিত খাবার নির্বাচন করে খেতে হয়। রক্তে ক্রিয়েটেনিনের মাত্রা রাতে আস্তে আস্তে বৃদ্ধি হয় এজন্য খাবার নির্বাচনে চিকিৎসকরা সর্তকতা অবলম্বন করতে বলে থাকেন। যদি আপনি কিডনি রোগে আক্রান্ত হন তাহলে আপনাকে নির্দিষ্ট পরিমাণ খাবার খেতে হবে। আমাদেরকে কি নিয়ে ভালো রাখার জন্য স্বাস্থ্যকর জীবন বেছে নিতে হবে। সেইসাথে খেতে হবে আমাদের প্রয়োজনীয় খাবারও। চলুন জেনে নেই আজকে কিডনি ভালো রাখার জন্য কোন কোন খাবার গুলো আপনাকে সাহায্য করে থাকবে।

যে সকল খাবার খেলে কিডনি ভালো থাকবে
যে সকল খাবার খেলে কিডনি ভালো থাকবে

যে সকল খাবার খেলে কিডনি ভালো

রসুন

আমাদের প্রতিদিন খাবার তৈরি করতে রসুন আমাদের ব্যবহার করতেই হয়। এই রসুন শুধুমাত্র খাবারের স্বাদ বাড়িয়ে দেয় তাই নয় সেই সাথে প্রয়োজনে পুষ্টির যোগান দেয় আমাদের শরীরে এই রসুন। আপনি যদি নিয়মিত রসুন খেতে পারেন তাহলে কিডনি ভালো রাখতে সাহায্য করে থাকবে। রসুন খাওয়ার মাধ্যমে আপনার রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারবেন। রসুন কি বলা হয় প্রাকৃতিক এন্টিবায়োটিক। রসুন নানারকম রোগ জীবাণু থেকে তাদের দেহকে দূরে রাখেন। সেই সাথে ভাল রাখে কিডনি। আর তাই আপনি নিয়মিত রসুন খেতে পারেন।

প্রতিদিন নিয়মিত ব্যায়াম করা

প্রতিদিন নিয়মিত ব্যায়াম করা যেমন স্বাস্থ্যের জন্য ভালো ঠিক তেমনি কিডনিকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে থাকে। নিয়মিত ব্যায়াম করার মাধ্যমে আপনার ওজন স্বাভাবিক রাখার পাশাপাশি রক্তচাপ স্বাভাবিক রাখে। আর এজন্য আপনি প্রতিদিন ৩০ মিনিট হাঁটতে পারেন।

প্রতিদিন নিয়মিত ব্যায়াম করা
প্রতিদিন নিয়মিত ব্যায়াম করা
সামুদ্রিক মাছ

সামুদ্রিক মাছ খাওয়ার মাধ্যমে কিডনি ভালো রাখতে পারেন। এই সামুদ্রিক মাছের ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিডের পরিমাণ খুব বেশি থাকার কারণে কিডনি ভালো থাকে। আপনার সাধ্যমত আপনি সামুদ্রিক মাছ খেতে পারেন।

হলুদ

প্রতিদিন খাবার তৈরি করতে এর হলুদ ব্যবহার করা হয়ে থাকে। হলুদ একটি মসলাদার খাবার। হলুদের রয়েছে অনেক পুষ্টি গুনাগুন। হল আমাদের কিডনি ভালো রাখতে সাহায্য করে থাকে। হলুদ রয়েছে প্রচুর এন্টিঅক্সিডেন্ট। এতে রয়েছে অ্যান্টিইনফ্লেম্যাটারি উপাদান। আপনার রান্না হলুদ ব্যবহারের পাশাপাশি হলুদ চা অথবা হলুদ মিশ্রিত দুধ নিয়মিত খেতে পারেন। এতে করে আপনি আপনার কিডনি ভালো রাখতে পারবেন।

অলিভ অয়েল তেল

আমাদের শরীরকে ভালো রাখতে অলিভ অয়েল তেলের উপকারিতা ঝুড়ি মেলা ভার। সেইসাথে আমাদের কিডনি ভালো রাখতে খুবই কার্যকরী এই অলিভ অয়েল তেল। আমাদের প্রতিদিনকার খাবার তৈরি করতে সয়াবিন তেলের পরিবর্তে পলিবল তেল ব্যবহার করলে আপনি আরো বেশি স্বাস্থ্য উপকারিতা পাবেন। সেই সাথে আপনার কিডনিও ভালো থাকবে।

ফুলকপি

ফুলকপি একটি শীতকালীন সবজী। বর্তমানে বর্ষার সময়ও পাওয়া যায় এই ফুলকপি। কিডনি ভালো রাখতে নিয়মিত ফুলকপি খেতে পারেন। এই ফুলকপিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি এবং ফাইবার এর উপাদান। এই উপাদানগুলি কিডনি ভালো রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে

লাল ক্যাপসিকাম সবজি

খাবারের স্বাদ আলাদা মাত্রা এনে দেয় লাল ক্যাপসিকাম। লাল ক্যাপসিকাম মূলত কম বিদেশি সবজি হলেও বর্তমানে এটি এখন বা আমাদের দেশেও পাওয়া যাচ্ছে। এই ক্যাপসিকাম সবজি খেতে খুব একটি সুস্বাদু না হলেও ক্যাপসিকামে রয়েছে অনেক পুষ্টি গুনাগুন। এই সবজিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ এবং ভিটামিন সি। আরো রয়েছে পটাশিয়াম। আর তা কিডনি ভালো রাখার জন্য আপনার প্রতিদিন নিয়মিত খাবারের তালিকায় রাখতে পারেন লাল ক্যাপসিকাম সবজি।

প্রচুর পরিমাণে পানি পান করা

কিডনি ভালো রাখার জন্য সবচেয়ে সহজ উপায় হল নিয়মিত প্রচুর পরিমাণে পানি পান করা। পানি পান করার মাধ্যমে বিভিন্ন রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। পানি পান করার মাধ্যমে আপনার শরীর থেকে অতিরিক্ত টক্সিন বের করে দেয় যা কিডনির জন্য খুবই উপকারী।

ব্যথানাশক ওষুধ কম খাওয়া

এসপিরিয়ন বেদানাশক ওষুধ নিয়মিত খাওয়ার কারণে অনেক সময় আপনার কিডনির ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। সেজন্য এই জাতীয় ওষুধ আপনাকে পরিহার করতে হবে।

ধূমপানমুক্ত থাকা

ধূমপানের মাধ্যমে আপনার ফুসফুসের যেমন ক্ষতি করে ঠিক তেমনি কিডনি কেউ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত করে ফেলে। আর আপনি যদি ধূমপানু করে থাকেন তাহলে ধূমপান পরিত্যাগ করার মাধ্যমে কিডনি রোগের ঝুকি কমিয়ে আনতে পারেন।

আপনার যদি কিডনির সমস্যা থাকে, তাহলে একজন চিকিৎসক বা পুষ্টিবিদের সাথে পরামর্শ করে একটি উপযুক্ত খাদ্য তালিকা তৈরি করা গুরুত্বপূর্ণ।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top